Updates:

Nirmol Bangladesh

তৃষ্ণাতুরের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে অংগ্রহন ও লেখক সনদ গ্রহন করতে রেজিস্ট্রেশন করুন। রেজিস্ট্রেশনের সুবিধা দেখতে নিম্নের লিংকে ক্লিক করুন।

পূর্বে প্রকাশিত তৃষ্ণাতুর

Previous
Next

তৃষ্ণাতুর ২০২৪ (৪র্থ সংখ্যা) বিষয়ক কিছু সাধারন জিজ্ঞাসা

নির্মল বাংলাদেশ একটি স্বেচ্ছাসেবা প্রদানকারী সামাজিক উন্নয়ন অংশীদারি একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। নির্মল বাংলাদেশ তার প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিভিন্ন ভাবে চেষ্ঠা করে যাচ্ছে।

তৃষ্ণাতুর হলো নির্মল বাংলাদেশের একটি বার্ষিক সাহিত্য সংকলন। যেখানে তরুণ ও প্রতিভাবান লেখকরা বিনামূল্যে তাদের লেখা প্রকাশ করার সুযোগ পায়। প্রতিবছর বাংলাদেশে আয়োজিত “জাতীয় বই মেলা”য় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে তৃষ্ণাতুর প্রকাশিত হয়।

তৃষ্ণাতুর প্রকাশের প্রেক্ষাপট হলো, নির্মল বাংলাদেশ বিশ্বাস করে যে এদেশের প্রতিভাবান তরুনদের মধ্যেই আছে আগামির বাংলাদেশের অমিত সম্ভাবনা। তাই এদেশের তরুন প্রতিভাবনদের সুপ্ত প্রতিভাবে আরো বিকশিত করতে একই সাথে তাদের মেধাকে দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক পরিমন্ডল থেকে স্বীকৃতি এনে দিতে নির্মল বাংলাদেশের তৃষ্ণাতুর প্রকাশ করা।

তৃষ্ণাতুর প্রকাশের উদ্দেশ্য ও প্রয়োজনীয়তা নিম্নরূপ:

  • এটি বাংলাদেশের তরুণ লেখকদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম। এটি তাদের লেখা প্রকাশের সুযোগ করে দেয় এবং তাদের প্রতিভা বিকাশে সহায়তা করে।
  • এটি বাংলাদেশের সাহিত্য চর্চার বিকাশে অবদান রাখে। তরুণ লেখকদের লেখা প্রকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশের সাহিত্য জগতে নতুন মাত্রা যোগ হয়।
  • এটি বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য রক্ষায় সহায়তা করে। তরুণ লেখকদের লেখা প্রকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও ইতিহাসের প্রচার ও প্রসার ঘটে।

তৃষ্ণাতুর প্রকাশের গুরুত্ব নিম্নরূপ:

  • এটি বাংলাদেশের তরুণ লেখকদের জন্য একটি স্বীকৃতি। এটি তাদের প্রতিভাকে স্বীকৃতি দেয় এবং তাদের লেখালেখিতে উৎসাহিত করে।
  • এটি বাংলাদেশের সাহিত্য জগতের জন্য একটি নতুন সম্ভাবনা। তরুণ লেখকদের লেখা প্রকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশের সাহিত্য জগত আরও সমৃদ্ধ হয়।
  • এটি বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য রক্ষায় একটি ভূমিকা পালন করে। তরুণ লেখকদের লেখা প্রকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও ইতিহাসের প্রচার ও প্রসার হয়।

তৃষ্ণাতুর বাংলাদেশের তরুণ লেখকদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম। এটি তাদের লেখা প্রকাশের সুযোগ করে দেয় এবং তাদের প্রতিভা বিকাশে সহায়তা করে।

তৃষ্ণাতুর প্রকাশের উদ্দেশ্য ও প্রয়োজনীয়তা নিম্নরূপ:

উদ্দেশ্য:

  • বাংলাদেশের তরুণ লেখকদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা।
  • বাংলাদেশের সাহিত্য চর্চার বিকাশে অবদান রাখা।
  • বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য রক্ষায় সহায়তা করা।

প্রয়োজনীয়তা:

  • বাংলাদেশের তরুণ লেখকদের প্রতিভা বিকাশে সহায়তা করা।
  • বাংলাদেশের সাহিত্য জগতে নতুন মাত্রা যোগ করা।
  • বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও ইতিহাসের প্রচার ও প্রসার ঘটা।

বিস্তারিত:

তরুণ লেখকদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা:

তৃষ্ণাতুর বাংলাদেশের তরুণ লেখকদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম। এটি তাদের লেখা প্রকাশের সুযোগ করে দেয় এবং তাদের প্রতিভা বিকাশে সহায়তা করে। তৃষ্ণাতুর প্রকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশের তরুণ লেখকরা তাদের লেখালেখির প্রতি আরও আগ্রহী হয়ে ওঠে এবং তাদের প্রতিভাকে আরও বিকশিত করতে সক্ষম হয়।

বাংলাদেশের সাহিত্য চর্চার বিকাশে অবদান রাখা:

তৃষ্ণাতুর বাংলাদেশের সাহিত্য চর্চার বিকাশে অবদান রাখে। তরুণ লেখকদের লেখা প্রকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশের সাহিত্য জগতে নতুন মাত্রা যোগ হয়। তৃষ্ণাতুর প্রকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশের সাহিত্য জগত আরও সমৃদ্ধ হয় এবং নতুন লেখকদের উদ্ভব হয়।

বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য রক্ষায় সহায়তা করা:

তৃষ্ণাতুর বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য রক্ষায় সহায়তা করে। তরুণ লেখকদের লেখা প্রকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও ইতিহাসের প্রচার ও প্রসার ঘটে। তৃষ্ণাতুর প্রকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরা হয় এবং রক্ষা করা হয়।

উপসংহার:

তৃষ্ণাতুর বাংলাদেশের তরুণ লেখকদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম। এটি তাদের লেখা প্রকাশের সুযোগ করে দেয় এবং তাদের প্রতিভা বিকাশে সহায়তা করে। তৃষ্ণাতুর প্রকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশের সাহিত্য চর্চার বিকাশে অবদান রাখা হয় এবং বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য রক্ষায় সহায়তা করা হয়।

তৃষ্ণাতুরে লেখা জমা দেওয়ার জন্য নিম্নলিখিত ধাপগুলি অনুসরণ করুন:

  • নির্মল বাংলাদেশের ওয়েবসাইটে যান এবং লেখক হিসেবে নিবন্ধন করুন।
  • নিবন্ধন করার ১২ ঘন্টার মধ্যে আপনার ইমেইলে একটি কোড পাঠানো হবে।
  • সেই কোডটি ব্যবহার করে আপনার লেখা জমা দিন।
  • আপনার লেখাটি অবশ্যই নতুন এবং সৃজনশীল হতে হবে।
  • আপনার লেখাটি অবশ্যই ভাষাগতভাবে নির্ভুল হতে হবে।
  • আপনার লেখাটি অবশ্যই একটি নির্দিষ্ট বিষয় বা ধারণার উপর ভিত্তি করে হতে হবে।

সাহিত্য সংকলনে যে সকল ক্যাটাগরিতে লেখা গ্রহন করা হবেঃ
১. ছোট গল্প
২. কবিতা
৩. রম্য রচনা
৪. রোমান্টিক গল্প
৫. ভ্রমন কাহিনী
৬. প্রবন্ধ
৭. ক্যারিয়ার ও ক্যাম্পাস
৮. অভিজ্ঞতা
৯. স্মৃতিচারন
১০. বিজ্ঞান কল্পকাহিনী/সাইন্স ফিকশন

১. লেখা অবইশ্যই বাংলায় হতে হবে।
২. লেখা অবশ্যই doc/docx ফর্মেট-এ হতে হবে।
৩. বাংলা লেখার জন্য ফন্ট হবে: বিজয়/ইউনিকোড/অভ্র
৪. লেখাটি অবশ্যই নিজের হতে হবে।
৫. পূর্বে প্রকাশিত হয়েছে এমন লেখা গ্রহনযোগ্য হবে না।
৬. লেখার সর্বোচ্চ শব্দসীমা ১৫০০।

প্রতিটি ক্যাটাগরির লেখা সমূহে অবশ্যই নিম্নের প্রতিপাদ্য বিষয় গুলোকে ফুটিয়ে তুলবেঃ
ক. সাম্য ও সমতা
খ. স্বাধীনতা ও সংগ্রাম
গ. বাংলা ও সংস্কৃতি

তৃষ্ণাতুর-২০২৪ সংকলনে স্থান প্রাপ্ত সকল লেখার লেখক/লেখিকাদের জন্য পুরষ্কার সমূহঃ
ক. প্রতিটি ক্যাম্পাস (স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়) থেকে একজনকে “Writer of the Campus” সনদ প্রদান করা হবে।
খ. নির্মল বাংলাদেশ নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ ৩ জন লেখককে “সাহিত্য পুরষ্কার-২০২৪” প্রদান করবে।
গ. প্রতিটি লেখক/লেখিকাকে সনদ প্রদান করা হবে।

ক. লেখা জমা দেওয়ার শেষ সময়ঃ ২০ জানুয়ারি, ২০২৪, রাত ১১.৫৯ টা।
খ. নির্বাচিত লেখক বা লেখিকার তালিকা প্রকাশঃ ২৫ জানুয়ারী, ২০২৪।
গ. সম্ভাব্য মোড়ক উন্মোচন ও পুরষ্কার বিতরনঃ ২১ ফেব্রæয়ারী, ২০২৪ বিকাল ৩:০০ টা,
ঘ. স্থানঃ বাংলা একাডেমি, বইমেলা প্রাঙ্গন।

নির্মল বাংলাদেশ আপনার ব্যক্তিগত তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষা করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। এই নীতিমালাটি বর্ণনা করে যে আমরা কীভাবে আপনার তথ্য সংগ্রহ, ব্যবহার এবং রক্ষা করি, যখন আপনি তৃষ্ণাতুর সাহিত্য সংকলনে আপনার লেখা জমা দেন।

কী ধরনের তথ্য সংগ্রহ করা হয়?

আমরা নিম্নলিখিত তথ্য সংগ্রহ করতে পারি:

  • আপনার নাম
  • আপনার ইমেইল ঠিকানা
  • আপনার যোগাযোগের নম্বর
  • আপনার জন্ম তারিখ
  • আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা
  • আপনার লেখালেখির অভিজ্ঞতা
  • আপনার লেখার শিরোনাম, ধরন, শব্দ সংখ্যা এবং সংক্ষিপ্ত বিবরণ

কীভাবে তথ্য ব্যবহার করা হয়?

আমরা আপনার তথ্য ব্যবহার করতে পারি:

  • আপনার লেখা জমা দেওয়ার প্রক্রিয়া সহজতর করার জন্য
  • আপনার সাথে যোগাযোগ করার জন্য, যদি আপনার লেখা সম্পর্কে কোনো প্রশ্ন বা মন্তব্য থাকে
  • তৃষ্ণাতুর প্রকাশ সংক্রান্ত আপডেট এবং তথ্য আপনাকে প্রেরণ করার জন্য
  • আমাদের ওয়েবসাইট এবং পরিষেবাগুলো উন্নত করার জন্য

তথ্য কি সাথে শেয়ার করা হয়?

আমরা আপনার তথ্য তৃতীয় পক্ষের সাথে শেয়ার করব না, বিনা আপনার অনুমতি ছাড়া। যদি আমাদের আপনার তথ্য কোনো তৃতীয় পক্ষের সাথে শেয়ার করতে হয়, তাহলে আমরা আপনাকে আগাম জানিয়ে দেব এবং আপনার অনুমতি নেব।

তথ্য নিরাপত্তা

আমরা আপনার তথ্য রক্ষা করার জন্য যুক্তিসঙ্গত ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। আমরা অনুমোদিত ব্যক্তি এবং প্রয়োজনীয় উদ্দেশ্য ছাড়া আপনার তথ্য অ্যাক্সেস করতে দেব না।

কুকি এবং অন্যান্য ট্র্যাকিং প্রযুক্তি

আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে কুকি এবং অন্যান্য ট্র্যাকিং প্রযুক্তি ব্যবহার করতে পারি। এই প্রযুক্তিগুলি আপনার ওয়েবসাইট ব্যবহারের অভিজ্ঞতা উন্নত করতে সহায়তা করে। আপনি আপনার ব্রাউজার সেটিংস ব্যবহার করে কুকি বন্ধ করতে পারেন, তবে এটি আমাদের ওয়েবসাইটের কিছু অংশ অ্যাক্সেস করতে আপনার অক্ষমতা ঘটাতে পারে।

আপনার অধিকার

আপনার নিম্নলিখিত অধিকার রয়েছে:

  • আপনার তথ্য অ্যাক্সেস করার অধিকার
  • আপনার তথ্য সংশোধন করার অধিকার
  • আপনার তথ্য মুছে ফেলার অধিকার
  • আপনার তথ্য প্রক্রিয়াকরণে আপত্তি জানানোর অধিকার
  • আপনার তথ্য অন্য কোনো সংস্থায় স্থানান্তর করার অধিকার

আপনি এই অধিকারগুলি অনুশীলন করতে চাইলে, দয়া করে আমাদের সাথে [ইমেইল ঠিকানা] ঠিকানায় যোগাযোগ করুন।